অনুচ্ছেদনির্মিতিবাংলা

অনুচ্ছেদঃ একুশের চেতনা

একুশের চেতনা

আজকের পোস্টে তোমাকে স্বাগতম। আজকের এই পোস্টে আমরা একটি  অনুচ্ছেদ দেখব – একুশের চেতনা। এইটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি অনুচ্ছেদ। এটি অনেকবার পরীক্ষায় কমন পড়ে।

তুমি যেই শ্রেণিতেই পড়োনা কেন – এইটি যদি তুমি মুখস্ত রাখো তাহলে তোমার পরীক্ষায় কমন পড়ার চান্স অনেক বেশি। আর এইজন্যই আজকে আমরা একটি খুবই সহজ এবং মুখস্ত করার মতো অনুচ্ছেদ নিয়ে এসেছি।

তাহলে চলো, শুরু করা যাক।

একুশের চেতনা

মহান ভাষা আন্দোলনের চেতনাকে ধারণ করেই বাঙালি জাতি স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠা করেছে। তাই একুশের চেতনা বাঙালি জাতিসত্ত্বার অবিচ্ছেদ্য অংশ। পাকিস্তান রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার সাথে সাথে বাংলার মানুষের ওপর সর্বপ্রথম যে বৈষম্যনীতি চাপিয়ে দেওয়া হয়, তা বাংলা ভাষাকে নিয়ে। সংখ্যাগরিষ্ঠের ভাষা হওয়া সত্ত্বেও বাংলাকে বাদ দিয়ে উর্দুকে পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা করার উদ্যোগ নেয় সরকার। প্রাণের ভাষা আর বাঙালি পরিচয়ের উৎস বাংলা ভাষার এ অবমাননা বাংলার মানুষ মেনে নিতে পারেনি। ছাত্রজনতা মিলে গড়ে তোলে দুর্বার আন্দোলন। শাসকগোষ্ঠীও থাকে অনমনীয় অবস্থানে। ধারাবাহিক আন্দোলনের এক পর্যায়ে | ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি ভাষাপ্রেমী বাঙালি ১৪৪ ধারা ভেঙে মিছিল বের করে। পুলিশ নির্বিচারে চালায় গুলি । রফিক, শফিক, সালাম, বরকতসহ আরো অনেকে শহিদ হন । ভাষার জন্যে এ আত্মদান বাঙালি জাতিকে বৃহত্ত্বর অর্জনের স্বার্থে অধিকতর আন্দোলন ও আত্মাহুতি উদ্বুদ্ধ করে। এ চেতনা আর প্রেরণাকে সঙ্গী করেই বাংলার মানুষ ধারাবাহিক সংগ্রামের প্রক্রিয়ায় ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে এবং বিজয়ী হয়। তাই বলা যায়, একুশের চেতনা আমাদের স্বাধীনতার উৎস। আমাদের আত্মপরিচয়ের ভিত্তি। এ চেতনাকে ধারণ করেই আমাদের সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে। তবে এ কথা মনে রাখতে হবে যে, একুশের চেতনা কেবল মুখে মুখে উচ্চারণের বিষয় নয়। এটিকে বাস্তবে রূপায়ণ করার জন্যে আমাদের সচেষ্ট হতে হবে। আমাদের মাতৃভাষার প্রমিত ও সর্বজনীন ব্যবহার নিশ্চিত করা ছাড়া একুশের চেতনা পুরোপুরি অর্থহীন ।

সম্পূর্ণ পোস্টটি মনোযোগ দিয়ে পড়ার জন্য তোমাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আশা করছি আমাদের এই পোস্ট থেকে যে আবেদন পত্রটি তুমি চাচ্ছিলে সেটি পেয়ে গিয়েছ। যদি তুমি আমাদেরকে কোন কিছু জানতে চাও বা এই পত্র নিয়ে যদি তোমার কোনো মতামত থাকে, তাহলে সেটি আমাদের কমেন্টে জানাতে পারো। আজকের পোস্টে এই পর্যন্তই, তুমি আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করে আমাদের বাকি পোস্ট গুলো দেখতে পারো।

Related posts

পত্রঃ সম্প্রতি পঠিত একটি গ্রন্থ সম্পর্কে নিজস্ব মতামত জানিয়ে বন্ধুর নিকট পত্র লেখ

Swopnil

ভাবসম্প্রসারণঃ নদীর এ পার কহে ছাড়িয়া নিঃশ্বাস, ওপারেতে সর্বসুখ আমার বিশ্বাস, নদীর ওপার বসি দীর্ঘশ্বাস ছাড়ে, কহে, যাহা কিছু সুখ সকলি ওপারে

Swopnil

ভাবসম্প্রসারণঃ আপনারে লয়ে বিব্রত রহিতে, আসে নাই কেহ অবনী পরে, সকলের তরে সকলে আমরা প্রত্যেকে আমরা পরের তরে

Swopnil

Leave a Comment