বাংলাঅনুচ্ছেদনির্মিতি

অনুচ্ছেদঃ আমার পরিবার

অনুচ্ছেদঃ আমার পরিবার

আজকের পোস্টে তোমাকে স্বাগতম। আজকের এই পোস্টে আমরা একটি  অনুচ্ছেদ দেখব – আমার পরিবার। এইটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি অনুচ্ছেদ। এটি অনেকবার পরীক্ষায় কমন পড়ে।

তুমি যেই শ্রেণিতেই পড়োনা কেন – এইটি যদি তুমি মুখস্ত রাখো তাহলে তোমার পরীক্ষায় কমন পড়ার চান্স অনেক বেশি। আর এইজন্যই আজকে আমরা একটি খুবই সহজ এবং মুখস্ত করার মতো অনুচ্ছেদ নিয়ে এসেছি।

তাহলে চলো, শুরু করা যাক।

আমার পরিবার

পরিবার প্রাচীনতম সামাজিক প্রতিষ্ঠান। পরিবারকে ঘিরেই মানুষের জীবনের বিকাশ। স্বাভাবিকভাবেই আমিও একটি পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছি এবং পরিবারের পরিমণ্ডলে বেড়ে ওঠছি। আমার পরিবার স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্যপূর্ণ। এটিকে একটি আদর্শ পরিবারও বলা যায়। এমন একটি পরিবারের সদস্য হিসেবে আমি সত্যি সুখী ও গর্বিত। দ্রুত বিলীয়মান যৌথ পরিবারে আমার জন্ম। আমার দাদু শক্ত হাতে ভাঙনের আঁচড় থেকে রক্ষা করে চলেছেন। আশা করা যায়, দাদু যতদিন জীবিত আছেন, ততদিন আমাদের পরিবার অক্ষত থাকবে। অনেকে শুনে আঁৎকে ওঠবে যে, আমাদের পরিবারে সদস্য সংখ্যা প্রায় বিশজন। দাদা-দাদি, চাচা-চাচি, জেঠা-জেঠি, চাচাতো-জেঠাতো ভাই-বোন, চাকর-বাকর নিয়ে জমজমাট আমাদের পরিবার। অন্য পরিবারে যারা জন্ম নিয়েছে ও বড় হচ্ছে তারা হয়তো ভাববে আমরা এক জনাকীর্ণ হাটের মাঝে বাস করছি। এখানে প্রাইভেসি বলতে কিছু নেই, ঝগড়া আর মন কষাকষিতে সময় যায় আমাদের। এতবড় পরিবার বলে, আমাদের পড়ালেখা, স্বাস্থ্যপরিচর্যা কোনোকিছুই সুষ্ঠুভাবে হয় না। আমরা নিজেদের মতো করে জীবনবিকাশের সুযোগ থেকে বঞ্চিত। আসলে মোটেই তা নয়। পরিবারে অনেক সদস্য বলে কিছু অসুবিধা হয়তো আছে বটে, কিন্তু অসুবিধাগুলো অবলীলায় মেনে নেওয়ার মানসিকতা অনেক বেশি মূল্যবান। আমরা শিখেছি সুখ-দুঃখ সকলে ভাগাভাগি করে নিতে । আমাদের সময় কাটে গল্প-গুজবে, খেলা ধুলায়। নাগরিক জীবনের একাকিত্ব কিংবা একঘেঁয়েমির যন্ত্রণা কী তা আমরা জানি না। আমরা শিখেছি মিলেমিশে থাকতে, পারস্পরিক শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা দিতে, সহানুভূতি আর সহযোগিতা চেতনা জাগিয়ে রাখতে। জীবনের অনেক পাঠ আমরা পরিবার থেকেই নিচ্ছি। আমার পরিবার যেন এক আনন্দঘন অঙ্গন, আমি আমার পরিবার নিয়ে সুখী।

See also  পত্রঃ  সংবাদপত্র পাঠের উপকারিতা বর্ণনা করে বন্ধুকে পত্র লেখ

সম্পূর্ণ পোস্টটি মনোযোগ দিয়ে পড়ার জন্য তোমাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আশা করছি আমাদের এই পোস্ট থেকে যে আবেদন পত্রটি তুমি চাচ্ছিলে সেটি পেয়ে গিয়েছ। যদি তুমি আমাদেরকে কোন কিছু জানতে চাও বা এই পত্র নিয়ে যদি তোমার কোনো মতামত থাকে, তাহলে সেটি আমাদের কমেন্টে জানাতে পারো। আজকের পোস্টে এই পর্যন্তই, তুমি আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করে আমাদের বাকি পোস্ট গুলো দেখতে পারো।

Related posts

ভাবসম্প্রসারণঃ স্বাস্থ্যই সকল সুখের মূল

Swopnil

পত্রঃ  বিদ্যালয় জীবনের শেষ দিনের মানসিক অবস্থা জানিয়ে বন্ধুকে পত্র লেখ

Swopnil

রচনাঃ আমাদের মুক্তিযুদ্ধ রচনা

Swopnil

Leave a Comment