চিঠিনির্মিতিবাংলা

পত্রঃ একটি মর্মান্তিক দুর্ঘটনার বর্ণনা দিয়ে বন্ধুকে একটি পত্র লেখ

একটি মর্মান্তিক দুর্ঘটনার বর্ণনা দিয়ে বন্ধুকে একটি পত্র লেখ

আজকের পোস্টে তোমাকে স্বাগতম। আজকের এই পোস্টে আমরা একটি পত্র দেখব – একটি মর্মান্তিক দুর্ঘটনার বর্ণনা দিয়ে বন্ধুকে একটি পত্র লেখ। এই পত্রটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি পত্র। এটি অনেকবার পরীক্ষায় কমন পড়ে।

তুমি যেই শ্রেণিতেই পড়োনা কেন – এই পত্রটি যদি তুমি মুখস্ত রাখো তাহলে তোমার পরীক্ষায় কমন পড়ার চান্স অনেক বেশি। আর এইজন্যই আজকে আমরা একটি খুবই সহজ এবং মুখস্ত করার মতো পত্র নিয়ে এসেছি।

তাহলে চলো, শুরু করা যাক।

একটি মর্মান্তিক দুর্ঘটনার বর্ণনা দিয়ে বন্ধুকে একটি পত্র লেখ

১০ মার্চ, ২০১৮

১৪ দক্ষিণ মোহসিন্দী, নারিন্দা, ঢাকা

প্রিয় সুমন,

আন্তরিক প্রীতি নিও । একটি মর্মান্তিক দুর্ঘটনার কারণে মনটা ভীষণ ভারাক্রান্ত হয়ে আছে। তোমার কাছে মনের কথা খোলে বলতে পারলে হয়তো হৃদয়-যন্ত্রণার কিছুটা উপশম হবে— তাই তোমাকে এ চিঠি লেখা ।

আজ বিকেলে রিকশা যোগে স্কুল থেকে বাসায় ফিরছিলাম। বাংলা মটরের কাছে ট্রাফিক সিগনালে রিকশা থেমেছে। দশ-বারো বছরের একটি মেয়ে যাত্রীদের কাছে ফুল বিক্রি করছে। রিকশায় বসে বসে মেয়েটির জীবন সংগ্রামের কথা ভাবছিলাম। সিগনাল শেষ হলে থেমে থাকা গাড়িগুলো রাস্তা পারাপারের জন্যে ব্যস্ত হয়ে ওঠল। মেয়েটি হারিয়ে গেল ভিড়ের মধ্যে। মুহূর্তেই আমার কানে ভেসে এলো একটি আর্তচিৎকার। গাড়ি চাপা পড়েছে ফুল বিক্রেতা সেই মেয়েটি। একটি রিকশাচালক তুলে নিয়েছিল তার রক্তাক্ত দেহ। মাথা ফেটে রক্ত ঝরছে। চাপা দিয়েই গাড়িটি উধাত্ত। কেউ নাম্বার নিতে পেরেছে কি না জানি না। সকলের মুখ থেকেই ধ্বনিত হচ্ছিল আফসোসের বাণী । একজন সহৃদয় বেবীযাত্রী মেয়েটিকে হাসপাতালে নিয়ে গেল। জানি না হতভাগিনী সেই মেয়েটি বেঁচে আছে কি না মরে গেছে? বেপরোয়া যানবাহন চলাচলের জন্যে দুর্ঘটনার শিকার হতে হলো একটি নিরীহ মেয়েকে । দুঃখবহ এ মর্মান্তিক দুর্ঘটনাটি আমার মন থেকে কিছুতেই দূর করতে পারছি না। তবে এটাই কামনা করছি হাসপাতাল থেকে মেয়েটি সুস্থ হয়ে তার মা-বাবার কোলে ফিরে যাক। যে বয়সে মেয়েটির হাতে বই থাকার কথা, অভাবের তাড়নায় সেই বয়সে তাকে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাজপথে বিক্রি করতে হচ্ছে ফুল।

মনের চাপা দুঃখকে তোমার কাছে প্রকাশ করে কিছুটা হালকাবোধ করছি। মেয়েটির জন্য দোয়া করো যেন প্রাণে বেঁচে ওঠে। তোমার কুশল কামনা করে শেষ করছি।

ইতি

তোমার প্রিয় বন্ধু

হাসান

সম্পূর্ণ পোস্টটি মনোযোগ দিয়ে পড়ার জন্য তোমাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আশা করছি আমাদের এই পোস্ট থেকে যে পত্রটি তুমি চাচ্ছিলে সেটি পেয়ে গিয়েছ। যদি তুমি আমাদেরকে কোন কিছু জানতে চাও বা এই পত্র নিয়ে যদি তোমার কোনো মতামত থাকে, তাহলে সেটি আমাদের কমেন্টে জানাতে পারো। আজকের পোস্টে এই পর্যন্তই, তুমি আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করে আমাদের বাকি পোস্ট গুলো দেখতে পারো।

Related posts

ভাবসম্প্রসারণঃ ইচ্ছা থাকিলে উপায় হয়

Swopnil

রচনাঃ মে দিবস

Swopnil

পত্রঃ আসন্ন জে.এস.সি. পরীক্ষার প্রস্তুতি জানিয়ে বন্ধুকে একটি পত্র লেখ

Swopnil

Leave a Comment