বাংলানির্মিতি

প্রতিবেদনঃ বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সম্পর্কিত একটি প্রতিবেদন রচনা কর

বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সম্পর্কিত একটি প্রতিবেদন রচনা কর

আজকের পোস্টে তোমাকে স্বাগতম। আজকের এই পোস্টে আমরা একটি  প্রতিবেদন দেখব – বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সম্পর্কিত একটি প্রতিবেদন রচনা কর। এইটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রতিবেদন। এটি অনেকবার পরীক্ষায় কমন পড়ে।

তুমি যেই শ্রেণিতেই পড়োনা কেন – এইটি যদি তুমি মুখস্ত রাখো তাহলে তোমার পরীক্ষায় কমন পড়ার চান্স অনেক বেশি। আর এইজন্যই আজকে আমরা একটি খুবই সহজ এবং মুখস্ত করার মতো প্রতিবেদন নিয়ে এসেছি।

তাহলে চলো, শুরু করা যাক।

বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সম্পর্কিত একটি প্রতিবেদন রচনা কর

তারিখ : ২৮/০১/২০১৮

স্মারক নং-পউবি-৮৫/০১৪

বরাবর

প্রধান শিক্ষক

রংপুর জেলা স্কুল

রংপুর ।

বিষয় : বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ২০১৮ সম্পর্কিত প্রতিবেদন ।

মহোদয়,

আপনার প্রদত্ত ২৪/০১/২০১৮ খ্রি. তারিখের স্মারক নং-পউবি-৮৫/০১২ পত্রের আদেশক্রমে রংপুর জেলা স্কুলে অনুষ্ঠিত বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ২০১৮ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানমালার একটি প্রতিবেদন আপনার সদয় অবগতির জন্য পেশ করছি।

গত ২২ জানুয়ারি ২০১৮ খ্রি. তারিখে বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রতিবারের মতো এবারেও বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানের দায়িত্ব ছিল বিদ্যালয়ের ক্রীড়া বিভাগের ওপর। ক্রীড়া বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষক জনাব জাফর হাওলাদারের সার্বিক তত্ত্বাবধানে এবং শরীরচর্চা শিক্ষক জনাব মোফাজ্জল হোসেনের পরিচালনায় ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সুন্দর ও সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছে।

বিগত বছরের তুলনায় এবারের ক্রীড়া প্রতিযোগিতার ইভেন্ট সংখ্যা অনেক বেশি ছিল। ক-গ্রুপে ইভেন্ট ছিল ১৫টি, খ-গ্রুপে ১৮টি এবং গ-গ্রুপে ২০টি। তিন গ্রুপ মিলিয়ে ৫৩টি ইভেন্টে প্রায় ৩০০ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। ১০০ মিটার দৌড়, ১৫০০ মিটার দৌড়, উঁচু লাফ, দণ্ডের সাহায্যে উঁচু লাফ, বর্শা নিক্ষেপ প্রভৃতি প্রতিযোগিতা দর্শকদের প্রচুর আনন্দ দিয়েছে। ‘যেমন খুশি তেমন সাজ’ -এতে ‘অপরাজেয় বাংলার’ রূপায়ণ ছিল খুবই আকর্ষণীয়। অভিভাবক এবং অতিথিদের জন্য ছিল পাতিল ভাঙা। মহিলা অতিথিদের জন্য ছিল ‘বাদ্যের তালে তালে বালিশ নিক্ষেপ’ । ২০ জানুয়ারি সকাল ৯.০০ টায় ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী পর্ব শুরু হয়। সুসজ্জিত ক্রীড়া-পোশাকে প্রতিযোগিরা খেলার মাঠে জাতীয় পতাকা ও ক্রীড়া-পতাকার সামনে সমবেত হয়। জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি জেলা উত্তোলনের সময় জাতীয় সংগীত পরিবেশিত হয়। প্রশাসক, রংপুর এবং ক্রীড়া পতাকা উত্তোলন করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জনাব মাহবুব চৌধুরী। অলিম্পিক মশাল প্রজ্জ্বলনের মাধ্যমে ক্রীড়া অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করা হয়। উদ্বোধন ঘোষণা করেন রংপুর জেলার সম্মানিত জেলা প্রশাসক মহোদয়। ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় ১ম, ২য় ও ৩য় স্থান অধিকারীদের ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়। এবারের ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় ছেলেদের মধ্যে শ্রেষ্ঠ খেলোয়াড়ের গৌরব অর্জন করে দশম শ্রেণির মানবিক শাখার ছাত্র ফয়সাল হোসেন এবং মেয়েদের মধ্যে শ্রেষ্ঠ খেলোয়াড়ের গৌরব অর্জন করে নবম শ্রেণির বাণিজ্য শাখার ছাত্রী দীপালি সাহা। ক্রীড়া প্রতিযোগিতা উপলক্ষে বিদ্যালয় ভবন এবং খেলার মাঠটি বর্ণাঢ্য সাজে সজ্জিত হয়েছিল। অনুষ্ঠানের ধারাবর্ণনা ছিল। শৃঙ্খলা রক্ষা ও অন্যান্য দায়িত্ব পালনে স্বেচ্ছাসেবকরা খুবই নিষ্ঠার পরিচয় দিয়েছে। পুরো ক্রীড়া অনুষ্ঠানটি ছিল খুবই শৃঙ্খলাপূর্ণ ও গোছানো। প্রতিযোগিদের ক্রীড়ানৈপুণ্য ও ক্রীড়াসুলভ মনোভাব দর্শকদের মুগ্ধ করেছে। বর্ণাঢ্য আয়োজনে বিপুল উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সম্পন্ন হয়েছে। খেলাধুলা শিক্ষারই অঙ্গ। সুস্থ দেহ ও সুস্থ মনের বিকাশে শিক্ষার্থীদের জন্য নিয়মিতভাবে খেলাধুলার ব্যবস্থা ও চর্চার সুযোগ তৈরি করতে হবে ।

See also  ভাবসম্প্রসারণঃ নদীর এ পার কহে ছাড়িয়া নিঃশ্বাস, ওপারেতে সর্বসুখ আমার বিশ্বাস, নদীর ওপার বসি দীর্ঘশ্বাস ছাড়ে, কহে, যাহা কিছু সুখ সকলি ওপারে

আপনার বিশ্বস্ত

‘স’

দশম শ্রেণি, বিজ্ঞান শাখা

রংপুর জেলা স্কুল, রংপুর ।

সম্পূর্ণ পোস্টটি মনোযোগ দিয়ে পড়ার জন্য তোমাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আশা করছি আমাদের এই পোস্ট থেকে যে আবেদন পত্রটি তুমি চাচ্ছিলে সেটি পেয়ে গিয়েছ। যদি তুমি আমাদেরকে কোন কিছু জানতে চাও বা এই পত্র নিয়ে যদি তোমার কোনো মতামত থাকে, তাহলে সেটি আমাদের কমেন্টে জানাতে পারো। আজকের পোস্টে এই পর্যন্তই, তুমি আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করে আমাদের বাকি পোস্ট গুলো দেখতে পারো।

Related posts

ভাবসম্প্রসারণঃ মেঘ দেখে কেউ করিস নে ভয়, আড়ালে তার সূর্য হাসে, হারা শশীর হারা হাসি অন্ধকারেই ফিরে আসে

Swopnil

রচনাঃ বাংলাদেশের জনসংখ্যা সমস্যা

Swopnil

সারমর্মঃ গাহি তাহাদের গান, ধরণীর বুকে দিল যারা আনি ফসলের ফরমান

Swopnil

Leave a Comment