অনুচ্ছেদনির্মিতিবাংলা

অনুচ্ছেদঃ যানজট

যানজট

আজকের পোস্টে তোমাকে স্বাগতম। আজকের এই পোস্টে আমরা একটি  অনুচ্ছেদ দেখব – যানজট। এইটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি অনুচ্ছেদ। এটি অনেকবার পরীক্ষায় কমন পড়ে।

তুমি যেই শ্রেণিতেই পড়োনা কেন – এইটি যদি তুমি মুখস্ত রাখো তাহলে তোমার পরীক্ষায় কমন পড়ার চান্স অনেক বেশি। আর এইজন্যই আজকে আমরা একটি খুবই সহজ এবং মুখস্ত করার মতো অনুচ্ছেদ নিয়ে এসেছি।

তাহলে চলো, শুরু করা যাক।

যানজট

রাস্তায় অতিরিক্ত যানবাহনের কারণে যখন দীর্ঘ লাইন পড়ে যায়।— যখন যানবাহন আর সামনে অগ্রসর হতে পারে না বা খুবই ধীরগতিতে অগ্রসর হয় তখন তাকে যানজট বলা হয়। যানজট বড় বড় শহর ও নগরের একটি সাধারণ দৃশ্য। এটি বর্তমান সময়ের একটি অন্যতম সমস্যা। যানজটের কারণ বহুবিধ। জনসংখ্যা বৃদ্ধির অনুপাতে রাস্তা-ঘাট সম্প্রসারিত হয়নি। অপরিকল্পিত রাস্তা-ঘাট ও ক্রমবর্ধমান লোকের চলাচল নিশ্চিত করতে অধিক যানবাহনের আমদানি যানজটকে বাড়িয়ে তুলেছে। অনুন্নত যানবাহন চলাচল ব্যবস্থা, ট্রাফিক আইনের প্রতি চালকের উদাসীনতা, ওভার টেকিং, রাস্তার পাশে অবৈধভাবে যানবাহন পার্কিং, পর্যাপ্ত ট্রাফিক পুলিশের অভাবও যানজটের জন্য দায়ী। অফিস শুরুর সময় এবং অফিস ছুটির পর যানজট ভয়াবহ আকার ধারণ করে। শহরের বিভিন্ন এলেকায় তখন চার-পাঁচ কিলোমিটার দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। যানজট যাত্রীদের জন্য অবর্ণনীয় দুঃখ-কষ্ট বয়ে আনে। শিশু, বৃদ্ধ এবং রোগীদের জন্য যানজট খুবই কষ্টের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। যানজট মূল্যবান সময় নষ্ট করে, কাজের ক্ষতি করে। যানজটের কারণে আদালতে, স্কুল-কলেজে, ব্যবসা কেন্দ্রে কিংবা অন্য কোনো গন্তব্যে যথাসময়ে পৌঁছা যায় না। যানজটের কারণে রোগীবাহী এম্বুলেন্স ও ফায়ার সার্ভিসের গাড়িকেও রাস্তায় আটকে থাকতে দেখা যায়। এ অসহনীয় অবস্থা থেকে নিষ্কৃতি পাওয়ার জন্য “কল্পিত ও প্রশস্ত রাস্তাঘাট নির্মাণ প্রয়োজন । আমাদের দেশে বড় বড় শহর ও নগরসমূহে ধীরগতি সম্পন্ন রিকশার অবাধ চলাচল in জট সৃষ্টির অন্যতম একটি কারণ। যানজট নিরসনে গুরুত্বপূর্ণ রাস্তায় রিকশা চলাচল বন্ধ করতে হবে। রাত দশটার পূর্বে যাতে শহরে ট্রাক প্রবেশ করতে না পারে সেদিকে দৃষ্টি দিতে হবে। লাইসেন্সবিহীন যানবাহনের চলাচল বন্ধ করতে হবে। ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থাকে আরো উন্নত করতে হবে। ট্রাফিক পুলিশের সংখ্যা বৃদ্ধি করাসহ ট্রাফিক আইন কঠোরভাবে প্রয়োগ করতে হবে। উল্লিখিত – স্থাসমূহ যথাযথভাবে গৃহীত হলে আশা করা যায় যে, যানবাহন চলাচল ব্যবস্থায় একটা শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠিত হবে এবং জনগণের যাতায়াত সহজ ও আনন্দপ্রদ হবে।

সম্পূর্ণ পোস্টটি মনোযোগ দিয়ে পড়ার জন্য তোমাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আশা করছি আমাদের এই পোস্ট থেকে যে আবেদন পত্রটি তুমি চাচ্ছিলে সেটি পেয়ে গিয়েছ। যদি তুমি আমাদেরকে কোন কিছু জানতে চাও বা এই পত্র নিয়ে যদি তোমার কোনো মতামত থাকে, তাহলে সেটি আমাদের কমেন্টে জানাতে পারো। আজকের পোস্টে এই পর্যন্তই, তুমি আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করে আমাদের বাকি পোস্ট গুলো দেখতে পারো।

Related posts

আবেদন পত্রঃ ‘মশক নিধন’ অভিযান শুরু করার দাবি জানিয়ে জেলা প্রশাসকের নিকট আবেদন পত্র লেখ

Swopnil

রচনাঃ সময়ের মূল্য

Swopnil

পত্রঃ পরীক্ষা কেমন হয়েছে তা জানিয়ে পিতার নিকট পত্র লেখ

Swopnil

Leave a Comment