চিঠিনির্মিতিবাংলা

পত্রঃ নিরক্ষরতা দূরীকরণের তাৎপর্য বর্ণনা করে বন্ধুর কাছে পত্র লেখ

নিরক্ষরতা দূরীকরণের তাৎপর্য বর্ণনা করে বন্ধুর কাছে পত্র লেখ

আজকের পোস্টে তোমাকে স্বাগতম। আজকের এই পোস্টে আমরা একটি পত্র দেখব – নিরক্ষরতা দূরীকরণের তাৎপর্য বর্ণনা করে বন্ধুর কাছে পত্র লেখ। এই পত্রটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি পত্র। এটি অনেকবার পরীক্ষায় কমন পড়ে।

তুমি যেই শ্রেণিতেই পড়োনা কেন – এই পত্রটি যদি তুমি মুখস্ত রাখো তাহলে তোমার পরীক্ষায় কমন পড়ার চান্স অনেক বেশি। আর এইজন্যই আজকে আমরা একটি খুবই সহজ এবং মুখস্ত করার মতো পত্র নিয়ে এসেছি।

তাহলে চলো, শুরু করা যাক।

নিরক্ষরতা দূরীকরণের তাৎপর্য বর্ণনা করে বন্ধুর কাছে পত্র লেখ

৭ আগস্ট, ২০১৮

সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম

সুপ্রিয় ফাহিম,

প্রীতি ও শুভেচ্ছা নিও। দেশের অনগ্রসরতা এবং অশিক্ষার জন্য তোমার চিন্তামগ্ন পত্র পেয়ে বিষয়টি নিয়ে আমিও ভাবতে শুরু করেছি। আসলে শিক্ষা ছাড়া জাতীয় উন্নতি অসম্ভব। দেশের জনগোষ্ঠীর বিপুল অংশ যদি শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত থাকে তবে সে দেশের উন্নতি ও অগ্রগতি ব্যাহত হওয়াই স্বাভাবিক। আমাদের দেশের অনগ্রসরতা এবং ক্ষুধা ও দারিদ্র্যের প্রধান কারণ নিরক্ষরতা। এ অভিশাপ থেকে দেশকে মুক্ত করতে না পারলে জাতীয় জীবনের উন্নতির সকল প্রয়াস ব্যর্থতায় পর্যবসিত হবে। আমাদের দেশ কৃষিপ্রধান দেশ। কৃষিক্ষেত্রে উন্নতির ওপর দেশের উন্নতি বহুলাংশে নির্ভরশীল। কিন্তু আমাদের দেশে কৃষির চালচিত্র অত্যন্ত হতাশাব্যঞ্জক। পুরোনো আমলের চাষাবাদ পদ্ধতি বিপুল জনসংখ্যা ভারাক্রান্ত দেশবাসীর অন্নাভাব দূর করতে ব্যর্থ। বর্তমান যুগ বিজ্ঞানের যুগ। বৈজ্ঞানিক চাষাবাদ পদ্ধতি ছাড়া এ বিপুল জনগোষ্ঠীর খাদ্যাভাব দূর করা অসাধ্য। কিন্তু নিরক্ষরতার কারণে আমাদের দেশের কৃষকসমাজ কৃষিক্ষেত্রে আধুনিক প্রযুক্তির প্রয়োগ করতে ব্যর্থ হচ্ছে। কেবল কৃষিক্ষেত্র নয়— ব্যবসা- বাণিজ্য, স্বাস্থ্য-পরিবেশ প্রভৃতি ক্ষেত্রেও অশিক্ষার অভিশাপ প্রকট । এছাড়া নিরক্ষর মানুষকে দৈনন্দিন জীবনে নানাভাবে ঠকতে হয়। তাই দেশ ও দেশবাসীর সার্বিক মঙ্গলের জন্য দেশের নিরক্ষরতা দূরীকরণে গণশিক্ষা কার্যক্রম চালু করা প্রয়োজন । এ ব্যাপারে সরকারি উদ্যোগের পাশাপাশি ছাত্রসমাজকেই অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। নিরক্ষরতা দূরীকরণ একটি জাতীয় কর্তব্য। দেশকে নিরক্ষরতার অভিশাপ থেকে মুক্ত করতে সকলকে একযোগে কাজ করতে হবে।

ফিরতি ডাকে এ ব্যাপারে তোমার সুচিন্তিত মতামতসহ চিঠি পাবার আশা রাখি । আমি ভালো আছি । তোমার কুশল কামনা করে শেষ করছি!

ইতি

তোমরই বন্ধু

সৌরভ

সম্পূর্ণ পোস্টটি মনোযোগ দিয়ে পড়ার জন্য তোমাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আশা করছি আমাদের এই পোস্ট থেকে যে পত্রটি তুমি চাচ্ছিলে সেটি পেয়ে গিয়েছ। যদি তুমি আমাদেরকে কোন কিছু জানতে চাও বা এই পত্র নিয়ে যদি তোমার কোনো মতামত থাকে, তাহলে সেটি আমাদের কমেন্টে জানাতে পারো। আজকের পোস্টে এই পর্যন্তই, তুমি আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করে আমাদের বাকি পোস্ট গুলো দেখতে পারো।

Related posts

রচনাঃ মিতব্যয়িতা

Swopnil

পত্রঃ একটি বনভোজনের বর্ণনা দিয়ে বন্ধুর নিকট পত্র লেখ

Swopnil

রচনাঃ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান

Swopnil

Leave a Comment